About

আন-নূর সম্পর্কে কিছু সাধারণ প্রশ্ন-উত্তর (FAQ):

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ্‌,
আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়াতে আপনাকে স্বাগতম,

•আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া মূলত কি কাজ করে? বিস্তারিত

আমরা আপনাকে সাহায্য করবো শারি’য়াহ অনুমোদিত পন্থায় দ্বীনি ভাই বোনদের জন্য পাত্র-পাত্রী খুঁজে দিতে। ইন শা আল্লাহ্‌।

• আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া কাদের জন্যে পাত্র-পাত্রী খুঁজতে সাহায্য করে? বিস্তারিত

আন-নূর ম্যারেজ মিডিয়া মূলত বাঙ্গালী মুসলিমদের জন্য কাজ করে থাকে।
এটি কোন নির্দিষ্ট মানহাজ, মাযহাব, দল, মত বা গোষ্ঠী (যেমন হানাফি/ আহলে হাদীস/ সালাফী/তাবলীগ/ জামাত/পীরের মুরিদ ইত্যাদি) ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান নয়। বা নিদিষ্ট মতের জন্য কাজ করে বিষয়টা এমন নয়।

তবে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে কাজের ক্ষেত্রে কিছু শর্ত মেনে  কাজ করে থাকি। যেমন ব্যক্তির স্পষ্ট শিরক ও কুফরমুক্ত হওয়া। পীর-সুফি-দরগা-খানকা–জাদু-তাবিজ-জোতিষশাস্ত্র-রাশি ইত্যাদি থেকে দূরে থাকা। বেআইনি বা হারাম আয় থেকে বেঁচে থাকা। বিবাহ অনুষ্ঠানকে হারাম ও অনৈসলামিক কর্মকান্ড থেকে মুক্ত রাখা। সুন্নাহ সম্মতভাবে বিবাহ অনুষ্ঠান করা।  বিবাহকে ইবাদাত হিসেবে গ্রহণ করা কোনভাবেই আর্থিকভাবে লাভবান হবার পথ না ভাবা। স্পষ্ট ও অস্পষ্ট যৌতুককে ঘৃণা করা।

যারাই এসব শর্তের সাথে ঐক্যমত পোষণ করে তারা যে দল-মত, মানহাজ, মাযহাবেরই হউক না কেন আন-নূর তাদের জন্য কাজ করে। সেক্ষেত্রে কেউ যদি  নিজেদের পছন্দ মত যেমন পাত্র/পাত্রী প্রত্যাশা করেন আমরা তার জন্য সেভাবেই চেষ্টা করি।

• বিয়ের মাধ্যমে যেসকল পাত্র বিদেশে যেতে চান বা আর্থিকভাবে লাভবান হতে চান বা যৌতুক চান তাদের জন্য কি আন-নূর কাজ করে? বিস্তারিত

পাত্রী পক্ষকে এ বিষয় আমরা নিশ্চয়তা দিতে পারি যে আমাদের মাধ্যমে তারা এমন কোন পাত্র পাবেন না।

যৌতুক ইসলামী বিবাহ রীতির বিপরীতে হিন্দুদের পণপ্রথার অনুসরণ ছাড়া কিছুই নয়। দাবী বা প্রত্যাশাতো দূর উল্টোতো মোহরানা দিয়ে বিয়ে করতে হবে। পাত্রী পক্ষের কাছে পাত্র পক্ষের কোন আর্থিক দাবী করা স্পষ্ট হারাম একটি কাজ। এমন লেনদেন বৈধ নয়।

আমরা বিয়েকে ইবাদাত মনে করি। যেহেতু আল্লাহ অবিবাহিতদের বিয়ের আদেশ দিয়েছেন। অভিভাবকদেরকে তাদের অধিনস্ত অবিবাহিতদের বিবাহ করিয়ে দিতে নির্দেশ দিয়েছেন। আর ইবাদাত কবুলের জন্য বিশুদ্ধ নিয়াত ও সুন্নাহ’র অনুসরণ শর্ত। আর দ্বীনের আদর্শ হচ্ছে পাত্র কোন আর্থিক সুযোগতো পাবেনইনা বরং তাকে কিছু না কিছু মোহরানা দিয়ে বিয়ে করতে হবে। বিয়ে পরবর্তী ভোজন (ওলিমা/বউভাত) ছোট/বড় পরিসরে পাত্র তার সামর্থ অনুযায়ী করলে ভাল, নয়তো নয়। কিন্তু উল্টো বিয়ে করে বিদেশে যাওয়ার চিন্তা, ভাল চাকরী লাভের প্রত্যাশা, অসম আর্থিক অবস্থানের পরিবারে বিয়ে করতে চাওয়া ইত্যাদিও একপ্রকার যৌতুক; যা কোন ক্রমেই আমরা সমর্থন করি না।

তবে যাদের নিজের অবস্থা, পারিবারিক অবস্থান ভাল; সে তেমনটা চাইলে সেটা অস্বাভাবিক নয়। কেউ অস্বাভাবিক কোন প্রত্যাশা বা আর্থিকভাবে লাভবান হবার নিয়তে বিয়ে করতে চাইলে সেটা বিয়ে হবে কিনা তা আল্লাহ-ই ভাল জানেন। তবে আমরা শুধু এতটুকু বলতে পারি যে, যারা বিয়ের মাধ্যমে আর্থিকভাবে লাভবান হতে চান বা যৌতুক চান আমরা আন-নূর টীম  তাদের জন্য কাজ করি না।

• আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া কিভাবে কাজ করে?বিস্তারিত

আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া পাত্র ও পাত্রী পক্ষ হতে নির্দিষ্ট ফী পরিশোধ করতঃ বায়োডাটা সংগ্রহ করে, আক্বীদাগত, বৈষয়িক, ব্যক্তিগত অন্যান্য তথ্য সংগ্রহ করে এবং পাত্রপক্ষের আগ্রহক্রমে পাত্রীর ওয়ালীর সঙ্গে যোগাযোগ করে এবং পরবর্তীতে উভয়পক্ষের উপস্থিতিতে মিটিংএর আয়োজন করে।

• আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া পাত্র/পাত্রী অনুসন্ধান ও অন্যান্য সেবা বাবদ কেমন ফি নিয়ে থাকে ?বিস্তারিত

আমরা পাত্র/ পাত্রীর প্রাথমিক রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করার পর তার জন্য উপযুক্ত পাত্র-পাত্রী খুঁজে দেই, এই রেজিস্ট্রেশন বাবদ একটি অফেরতযোগ্য ফী রয়েছে যা তাদের কাজের শুরুতেই পরিশোধ করতে হয়। এই রেজিস্ট্রেশন ফী পরিশোধ করার পর আমরা কাজে অগ্রসর হই। এবং ইন শা আল্লাহ্‌, বিয়ে সম্পন্ন হয়ে যাওয়ার পর আমরা আলাদাভাবে কার্য সমাধা সাপেক্ষে একটি সম্মানী নিয়ে থাকি, যা আলোচনা সাপেক্ষে নির্ধারিত হয়।

রেজিস্ট্রেশন ফি-এর পরিমাণ,

CATEGORY A – দেশে অবস্থানকারী পাত্র/পাত্রীর রেজিস্ট্রেশন ফি– জনপ্রতি ১০,০০০ টাকা (দশ হাজার টাকা) বা কাজের গুরুত্ব অনুসারে জনপ্রতি ২০,০০০ টাকা (বিশ হাজার টাকা) হতে পারে।

CATEGORY B – বিদেশী নাগরিক/স্থায়ী বসবাসকারী পাত্র/পাত্রীদের জন্য ও প্রবাসী  পাত্র/পাত্রীদের জন্য রেজিস্ট্রেশন ফি – জনপ্রতি ২০,০০০ টাকা (বিশহাজার টাকা) বা US$250 (Two Hundred Fifty US Dollar Only) বা কাজের গুরুত্ব অনুসারে জনপ্রতি প্রতি ৩০,০০০ টাকা (ত্রিশহাজার টাকা) বা US$ 400  (Four Hundred US Dollar Only) হতে পারে।

বিবাহ পরবর্তী সম্মানী বাবদ ফি-এর পরিমাণ,

বিবাহ পরবর্তী সম্মানী গ্রাহকের আর্থিক অবস্থা বিবেচনায় নির্ধারিত হয়। কাজ বুঝে নেবার প্রাককালে আলোচনা করে  ফি এর পরিমাণ ঠিক করে রাখা হয়ে থাকে; যা শুধুমাত্র বিবাহ সম্পন্ন হলেই পরিশোধযোগ্য। 

উপরোক্ত দু’ ধরনের ফি ব্যতীত আমরা কোন ধরনের খরচ নেই না।
আর্থিক দুর্বলতার প্রেক্ষিতে ব্যক্তি বিশেষকে উপরোক্ত দু প্রকার চার্জে আলোচনা সাপেক্ষে কিছু ছাড় দেওয়া হয়ে থাকে।

• নিবন্ধন বা সদস্যতা কতদিন বলবৎ থাকবে? বিস্তারিত

পাত্র বা পাত্রীর সদস্যতা ১(এক) বছর পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। মেয়াদ চলে গেলে সদস্যতা স্থগিত হয়ে যাবে। পাত্র/পাত্রীগণ যোগাযোগ করে সদস্যতা নবায়ন করতে চাইলে পূণরায় বর্তমান ফি পরিশোধ করে সদস্যতা নবায়ন করতে পারবেন।

• আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া কি বিয়ে হবার ব্যাপারে গ্যারান্টি দেয়? বিস্তারিত

বিয়ে ক্বাদরের উপর নির্ভরশীল, ক্বাদরের উপর পূর্ন আস্থা রাখা ঈমানের দাবি। আলহামদুলিল্লাহ্‌ আমরা আমাদের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা দ্বারা কাজ সমাধা করার চেষ্টা করি। আমাদের প্রচেষ্টায় এ পর্যন্ত ১৭৬ জন পাত্র-পাত্রীর বিয়ে সফল ভাবে হয়েছে এবং আরো প্রক্রিয়াধীন আছে, বিইদ্‌নিল্লাহ্‌। যেহেতু বিয়ে আল্লাহ্‌ সুবহানাহু ওয়া তা’আলার নিয়ামত এবং আল্লাহ’র একক ক্ষমতা রয়েছে ক্বাদরের বিষয়াবলী নিয়ন্ত্রনে। সুতরাং আমরা বিয়ে হবার ব্যাপারে কোন গ্যারান্টি দিতে পারি না। তবে আমরা আপনার জন্য অবশ্যই আমাদের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টাটুকু দিতে নিবেদিত প্রান থাকবো ইন শা আল্লাহ্‌।

• বিয়ে না হলে (না’উযুবিল্লাহ্‌) আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া কি সদস্যতা ফি ফেরত দিবে?বিস্তারিত

সদস্যতা ফি ফেরতযোগ্য নয়। তবে বিশেষক্ষেত্রে কোন পাত্র/ পাত্রী পক্ষ আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়ার কাজে যৌক্তিক কারণে সন্তুষ্ট না হলে আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া আলোচনা সাপেক্ষে মূল সদস্যতা ফি -এর আংশিক রেজিস্ট্রেশন ফী ফেরত দিবে, ইন শা আল্লাহ্‌।

• বিয়ে পরবর্তী কোন জটিলতার দায় আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া কি নিবে?বিস্তারিত

বিয়ে পরবর্তী কোন জটিলতার দায় আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া নিবে না। বিয়ের পূর্বেই পাত্র ও পাত্রীপক্ষ পরস্পর আলোচনা করত বিয়ে ঠিক করবেন, আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া এই ক্ষেত্রে কোন পক্ষের প্রভাবক হিসেবে কাজ করবে না বরং নিরপেক্ষ থাকবে। আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া পাত্র ও পাত্রীপক্ষ হতে প্রাপ্ত তথ্য গোপন করবে না। আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া বিয়ের ক্ষেত্রে ৩য় পক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেনা, কেবলমাত্র বিয়ে হওয়া পর্যন্ত উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘটক হিসেবে কাজ করবে। প্রাথমিক বিষয় পছন্দ হলে পাত্র/পাত্রী পক্ষকেই সার্বিক তথ্য হালনাগাদ/ যাচাই করে নিতে হবে।
স্বেচ্ছায় প্রদত্ত নয় এমন কোন ব্যক্তিগত / সাংসারিক/ পেশাগত তথ্য দিতে বা নিতে আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া অপারগ।
বিয়ে পরবর্তী কোন সাংসারিক বা আইনি জটিলতায় আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া কোন ভূমিকা পালন করবে না এবং দায় গ্রহন করবে না।

• আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়ার রেজিস্ট্রেশন ফী কি খুব বেশী / কম/ “ধর্মের নামে ব্যবসা” করছে?বিস্তারিত

আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া একটি স্বল্পলাভযুক্ত সামাজিক ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান, যা পরিচালনায় অর্থের প্রয়োজন হয়। প্রাতিষ্ঠানিক প্রয়োজন, মুনাফা এবং সর্বোপরি গ্রাহকের চাহিদা ও সামর্থ্যের মধ্যে ভারসাম্য রক্ষা করে আমরা আমাদের পারিশ্রমিক/ ফি গ্রহন করে থাকি।

আমরা “ধর্মের নামে ব্যবসা” করছি না বরং বলা যেতে পারে আমরা “ধর্মের ভিত্তিতে ব্যবসা” করছি। বৃহৎ পরিসরে দ্বীনি ভাই – বোনদের মধ্যে জানাশোনা থাকে না এবং তা দ্বীনি ভাই বোন দের জন্য তা শোভনীয়ও নয়। একটি প্লাটফর্ম থাকলে যেটা সহজ হয়ে যায়। আমরা শারি’য়াহ অনুমোদিত পদ্ধতিতে দ্বীনি ভাই-বোন ও তাদের অভিভাবকদের সহায়তায় পাত্র/পাত্রী খুজে প্রচেষ্টা চালিয়ে থাকি। এবং এর বিনিময়ে পারিশ্রমিক/ ফি গ্রহন করে থাকি।

এছাড়াও বিবাহ ও দাম্পত্য বিষয়ে পরামর্শ প্রদান, পারিবারিক কাউন্সেলিং, বিবাহপূর্ব ও পরবর্তী বিষয়ে কাউন্সেলিংয়ের মত প্রয়োজনীয় সেবাগুলোও দিয়ে থাকি।

আমাদের প্রক্রিয়াটি সম্পুর্ন পরিষ্কার এবং এতে লুকোচুরির কোন ব্যাপার নেই।

• আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়ার কি কোন রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা আছে?বিস্তারিত

আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া একটি অরাজনৈতিক স্বল্পমুনাফা ভিত্তিক ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান। এর কোন রাজনৈতিক বা অরাজনৈতিক সংস্থা/দলের সাথে সংশ্লিষ্টতা নেই। বাঙ্গালী দ্বীন পালনে সচেষ্ট মুসলিম ভাই-বোনদের উপযুক্ত পাত্র/পাত্রী নির্বাচনে সহায়তা ও সফল বিবাহ সম্পাদন, দাম্পত্য বিষয়ক পরামর্শ প্রদানের মাধ্যমে সুখি পরিবার ও দাম্পত্য গড়ে তোলাই আমাদের লক্ষ্য।

• আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়ার সাথে কিভাবে যোগাযোগ করবো?বিস্তারিত

বিভিন্ন মাধ্যমে যোগাযোগ করার পথ থাকলেও আন-নূর উৎসাহ দেয় ফোনে, মেইলে কিংবা সরাসরি অফিসে এসে কথা বলাকে। এটি অন্যান্য মাধ্যমগুলোর চেয়ে সবচেয়ে দ্রুত ও নিবিড় সেবা দিতে আমাদের সহায়তা করে।

অফিসের ঠিকানা
আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া
খান-ম্যানশন, গ-১৪/১ (৬ষ্ঠ তলা), প্রগতি স্বরণি, শাহজাদপুর বাসস্ট্যান্ড, বাড্ডা, গুলশান, ঢাকা-১২১২;

মোবাইলঃ +8801727-209497, +8801817-526423

বোনেরা যোগাযোগ করতে চাইলে,
01795-421938 [সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত]

ইমেইল info@annurmatrimony.com

উল্লেখ্য আমাদের অন্য কোন শাখা নেই; তবে ঢাকার মূল অফিস থেকেই দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের কাজ করে যাচ্ছি এছাড়াও দেশের বাহিরের কাজও এখান থেকেই করা হয়,

কাজের প্রক্রিয়া ও তথ্য নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়াদী(Work Prosedure & Privacy Policy):

•বায়োডাটা আর ফি জমা দিলেই কি আপনার কাজ শুরু করেন? বিস্তারিত

আমরা মূলত বিস্তারিত জেনে বুঝে কাজটা নেয়ার চেষ্টা করি। আর সেটা শুধুমাত্র বায়োডাটা দেখে বোঝা সম্ভব নয়। তাই পাত্র/পাত্রীর সাথে সরাসরী কথা বলে বোঝার চেষ্টা করি। অনেক সময়ই পাত্র/পাত্রীর মানসিক অবস্থা, আচরণ, পছন্দ-অপছন্দ ইত্যাদির সাথে তাদের পরিবারের অমিল থাকে তাই পরিবারকেও বুঝতে হয়। তাদের সাথেও কথা বলে বোঝার চেষ্টা করি। তারপরই মূলত আমরা কাজে অগ্রসর হই। আমাদের অভিজ্ঞতার আলোকে এটা একটা ভাল ম্যাচ হবার জন্য জরূরী। বাকিটা আল্লাহর ইচ্ছা।

•আপনাদের বিস্তারিত কাজের প্রসিডিউরটা তাহলে কেমন? বিস্তারিত

<<< আন-নূরের কাজের প্রক্রিয়া >>>

1. প্রথমত আমরা কিছু শর্ত মেনে চলেন এমন ব্যক্তিবর্গের জন্য কাজ করি।

আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া যাদের জন্য পাত্র/পাত্রী খুজে দেয়?
● যারা কোন সূফী, পীর বা দরবেশের ভক্ত বা মূরীদ নন;
● যারা মাযার, দরগা, খানকার সাথে সম্পর্ক রাখেন না;
● যারা জোতিষ শাস্ত্র (Astrology), রাশিচক্রে বিশ্বাসী নন;
● তাবীয-কবচ, আংটি, বালা, তাগা ইত্যাদি ব্যবহার করেন না;
● যারা নিয়মিত সালাত আদায় করেন;
● আয়-রোজগারের পথকে হারাম থেকে মুক্ত রাখেন;
● সুদ ভিত্তিক ব্যাংক/ প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করেন না;
● যারা বিবাহকে আর্থিকভাবে লাভবান হবার পথ ভাবেন না;
● সহীহ সুন্নাহ অনুযায়ী বিয়ে করতে চান;
● যারা ইসলামী সংস্কৃতি বিরোধী অনুষ্ঠান পরিহার করতে চান;
● যারা স্পষ্ট ও অস্পষ্ট যৌতুক নেয়া অপছন্দ করেন

যারা ঐ সকল বিষয়ে একমত ও মেনে চলেন তারা আমাদের সেবা পেতে পারেন।
.
2. যারা আন-নূর পরিবারের একজন হতে চান তার প্রথম কাজ বায়োডাটা পাঠানো এবং সরাসরী বিস্তারিত কথা বলে, ফি পরিশোধ করে কাজ বুঝিয়ে দেয়া। আন-নূর অন্যান্য অনলাইন ভিত্তিক বা লোকাল ঘটকদের মত শুধু বায়োডাটা বা ছবি নিয়েই কাজ শুরু করে না বরং কার জন্য কাজ করছে তার আচরণ, পছন্দ- অপছন্দ, চিন্তা-ভাবনা ইত্যাদি সরাসরী কথা বলে জেনে বুঝে ম্যাচ করার চেষ্টা করে।
.
3. কথা বলে সব ঠিক থাকলে আমরা নিবন্ধন চুড়ান্ত করি। সেক্ষেত্রে অফেরতযোগ্য সদস্যতা ফি নেয়া হয়। এছাড়া যদি আমাদের মাধ্যমে বিবাহ সম্পন্ন হয় মানে ম্যাচ পছন্দ হয়ে বিবাহ হয় তাহলে বিবাহ সম্পন্ন হবার পর আমরা একটি সম্মানি নিয়ে থাকি। সদস্যতা ফি নির্ধারিত হলেও সম্মানি পাত্র/পাত্রী পক্ষের সামর্থ বিবেচনা করে আগেই কথা বলে ঠিক করে রাখা হয়। উল্লেখ্য *যদি আল্লাহ চান অন্য কোন মাধ্যমে বিবাহ সম্পন্ন হয় তাহলে আমাদেরকে উক্ত সম্মানি দিতে হবে না। *সদস্যতা ফি অফেরতযোগ্য অন্য মাধ্যমে বিয়ে হলেও তা ফেরত যোগ্য নয়। কেননা, বিবাহ ক্বদরের বিষয় আমরা চেষ্টা ও শ্রম দেবার পরও অন্য মাধ্যমে হয়ে যেতে পারে বা কাজে বিলম্ব হতে পারে। * সদস্যতা ফি বিবাহ না হওয়া পর্যন্ত বলবত থাকে। *অস্বামর্থবানদের উভয় ফিতে বিবেচনা সাপেক্ষে ছাড় দেয়া হয়ে থাকে।
.
4. সদস্যতা লাভের পর আমরা আমাদের কাছে থাকা বায়োডাটাগুলোর সাথে ম্যাচ মেলানোর চেষ্টা করি। যদি পাই তা শেয়ার করি। যদি না পাই তাহলে বিভিন্ন মাধ্যমে বায়োডাটা খোজা, বিজ্ঞাপন, প্রচার ইত্যাদির মাধ্যমে বায়োডাটা সংগ্রহ করে থাকি। অনেক সময় ম্যাচ মিললে অপরপক্ষের পজেটিভ প্রতিউত্তরের জন্য অপেক্ষা করতে হয়। তাই সদস্যতা লাভের পর আমাদেরকে সময় দেয়ার বিষয় পরামর্শ দেই। একটা ভাল সঙ্গী দরকার, তাই ধৈর্য রাখতে হবে, দুআ করে যেতে হবে; যেন আমাদের মাধ্যমে বা যেকোন মাধ্যমে একজন ভাল সঙ্গী খুজে পাওয়া সহজ হয়।
.
5. বায়োডাটা উভয়পক্ষে পজেটিভ হলে আমাদের মধ্যস্থতায় উভয় পরিবার বৈঠক করে পাত্র/পাত্রী দেখাদেখির ব্যবস্থা উভয়পক্ষই করেন। সব কিছু ঠিক থাকলে বিবাহ সম্পন্ন হয় এবং বিবাহ হয়ে গেলেই আমরা সম্মানির টাকা সংগ্রহ করে থাকি। *আর যদি বৈঠকের পর কোনভাবে বিবাহ না হয় তাহলে আমরা আমাদের কাজ চালিয়ে যাই- কাজের প্রক্রিয়া আবার ম্যাচিং থেকে শুরু হয়। এভাবে আমাদের পুরো কাজটি সম্পন্ন হয়।
.
এ কাজ সমাধার জন্য আমাদের ক্লাইন্ট সার্পোর্ট টীম, কাউন্সেলিং টীম, ম্যাচ মেকিং টিম, মার্কেটিং টীম, সলিউশন টীম রয়েছে। এছাড়া বৈঠক থেকে বিবাহ সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত সার্বিক বিষয় আমাদের চীফ কাউন্সেলর দেখে থাকেন। আন-নূরের পুরো টীম আপনাকে আমাদের সদস্য ও বিবাহ সম্পন্ন হওয়া ১৭৬জন ভাই/বোনের পরিবারে স্বাগত জানাচ্ছে…

•আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া কি তার নিবন্ধিত বা অনিবন্ধিত সদস্যদের ব্যক্তিগত তথ্য সামাজিক বা গণ মাধ্যমে প্রকাশ করে? বিস্তারিত

আপনাদের সকল ব্যক্তিগত তথ্য আন-নূর আমানাহ বিবেচনা করে। তাই আন-নূর ইসলামিক ম্যারেজ মিডিয়া কোনভাবেই কারো তথ্য সামাজিক মাধ্যম বা গণ মাধ্যমে প্রকাশ করে না। শুধুমাত্র চাহিদাপত্রের সাথে সংগতিপূর্ণ পাত্র/পাত্রী পক্ষের সাথে পাত্র/পাত্রীদের অনুমতিক্রমে বায়োডাটা বিনিময় করে থাকে।

•আন-নূরে বায়োডাটা প্রেরণকালে কি পাত্র/পাত্রীর ছবি দিতেই হবে? বিস্তারিত

আমাদের কাজের অভিজ্ঞতার আলোকে বলতে পারি বিবাহের প্রয়োজনে পাত্র/পাত্রীকে অবশ্যই ছবি দিতে হবে। তবে, যারা কেবল ও কেবলমাত্র পর্দার কথা চিন্তা করেন, মাহরাম-গাইরমাহরাম মেনে চলেন, সাধারণত ছবি তোলেন না, তাদের ক্ষেত্রে পাসপোর্ট ছবির মত ছবি দিলেই হবে; যেমনটা তারা প্রতিষ্ঠানিক প্রয়োজনে স্কুল/ ভার্সিটি/ জাতীয় পরিচয়পত্র/ পাসপোর্ট ইত্যাদি কাজের জন্য দিয়ে থাকেন।
উল্লেখ্য কারো ব্যক্তিগত তথ্য, মোবাইল নম্বর, ছবি, বাসার ঠিকানা বা পরিচয় প্রকাশ পায় এমন তথ্য আমরা কোন গন-মাধ্যম বা সামাজিক মাধ্যমে দেই না। এছাড়া চাহিদাপত্রের বাহিরেতো প্রশ্নই ওঠেনা এমন কি ম্যাচিং হওয়া পাত্র/পাত্রীকেও ব্যক্তিগত তথ্যাদি প্রথম ধাপে দেয়া হয় না। যতটুকু প্রাথমিকভাবে পছন্দ করার ক্ষেত্রে প্রয়োজন তা এবং ছবিই বিনিময় করা হয়ে থাকে। এরপর যদি উভয়পক্ষ বায়োডাটা দেখে পছন্দ করেন তাহলে বৈঠক বা যোগাযোগের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য দেয়া হয়ে থাকে। মোটকথা আমরা শরীয়াহ এর গন্ডির মাঝে প্রয়োজন ও জরুরত বিবেচনার বিষয়টিকে গুরুত্ব দেই।

•আপনাদের ফি এত বেশি কেন!!!? জবাব

আমরা আমাদের কাজটি প্রফেশনালি করছি। ভলেনটারী নয়। ভলেনটারী করলে কাজের মান থাকেনা। সময় দেয়া যায় না। অন্যান্য কাজ, পড়াশুনা বা চাকুরী ইত্যাদির পর সময় পেলে করতে হয়। কিন্তু আমরা কোন ব্যক্তিগত উদ্যোগে ফলেনটারী কাজ করছি না। একটা একটি প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগ; প্রফেশনালী কাজ করা হয়। এই প্রতিষ্ঠান এই প্রতিষ্ঠানের আয় দিয়েই চলছে। আমাদের কোন ডোনারও নেই। তার ফলে খরচ নিতেই হয়ে। তবে এটাও ঠিক যে, যেসকল দ্বীনি ভাই/বোন ফি প্রদানের বিষয়ে অসামর্থবান তাদের অবস্থা বিবেচনায় আন-নূর আলোচনা সাপেক্ষে ছাড় দিয়ে থাকে।

এ পর্যন্ত আমাদের মাধ্যমে ১৭৪ জন ভাই-বোনের বিয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে বিইদনিল্লাহ! এবং আরো প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এখানে যারা কাজ করি তারা ফুল টাইম কাজ করছি। আমরা প্রতিটি বায়োডাটার জন্য পর্যাপ্ত সময় দেই। তাদের সাথে বিস্তারিত কথা বলতে হয়। এক্সপার্টদের দিয়ে তাদের মনের অবস্থা বোঝার চেষ্টা করি। এর পর আসে ম্যাচমেকিং এর প্রশ্ন। সেক্ষেত্রে আমাদের সময় নিয়ে বুঝে শুনে কাজ করতে হয়। এছাড়াও আমাদের অফিস মেইনটেইন করতে হয়। প্রয়োজনে আমরা বিভিন্ন মিডিয়া ও মাধ্যমে পাত্র-পাত্রী সন্ধান করতে হয়। সোস্যাল মিডিয়াসহ বিভিন্ন মাধ্যমে খরচ করতে হয়। আর আমরা অন্যান্য মিডিয়ার মত সবার কাজ নেই না। সমাজের একটা বড় অংশের কাজ না করার কারণে সংখ্যা না বিবেচনা করে কাজের মান বিবেচনা করতে হয়। এখানে যারা কাজ করেন সবাই চাকুরী হিসেবেই করেন। সব মিলিয়ে আমাদের খরচ হয়। যার একমাত্র মাধ্যম এটাই। আর বিয়ের আগ পর্যন্ত আমরা ঐ ভাই বা বোনের জন্য কাজ করি। বিয়ের আগ পর্যন্ত কোন খরচ তাদের দিতে হয় না। অন্যান্য মিডিয়ার মত আমরা কিছু দিন পর পরই টাকা চাই না। আপনি অনুগ্রহ করে যাচাই করে দেখতে পারেন।

আমাদের উদ্দেশ্য সহীহ আকীদার ভাই-বোনদের সহায়তা করা এবং আমরা যাদের বর্জন করি তাদের বর্জনের মাধ্যমে দাওয়াহ দেয়া যাতে তারা চিন্তা ভাবনা করে । যেহেতু অনেক খরচ হয় তাই আমাদের সদস্য হওয়া বাবদ ফি দিতে হয়। এছাড়াও অনেকেই ফি না দিলে এ বিষয় গুরুত্ব দেন না। বায়োডাটা ফেলে রাখেন মাত্র। আর এমনও এটি থাকার ফলে যারা বিবাহের বিষয় সিরিয়াস তারাই এগোন। এটা না থাকলে অনেকেই শুধু শুধুই বায়োডাটা দিয়ে রাখত এতে আমাদের কাজের ক্ষতি হত। হয়ত আমরা এগুতাম আর তারা নানা তাল-বাহানা করত। তাই আমরাও চাই যারা বিবাহের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারাই সদস্য হোন। আর বর্তমানে বিবাহের যেভাবে খরচ করা হয় সে তুলনায় ভাল পাত্র/পাত্রী খুজার বিষয় খরচ করার বিষয় কেন এত সংকোচ করা হয় তা বুঝে আসে না। অথচ অল্প খরচের বিয়েতেই বারাকাহ আছে। আশা করি বুঝতে পেরেছেন।

•আপনারা কেন আগে ফি নেন!? যদি কাজের পর টাকা নেন তাহলে কাজ দিতে পারি। জবাব

আপনি আগেই রেজিষ্ট্রেশন করতে চাচ্ছেন না বরং কাজ হলে বা বিবাহ ঠিক হলে পেমেন্ট করতে চাইছেন। যদি বিষয়টা এমন হয় তাহলে বলি, কাজ হলেও আমাদেরকে বিবাহ পরবর্তী সম্মানি হিসেবে আরেকটি ফি দিতে হয়। আমরা মূলত চাই শুধুমাত্র এমন ভাই/ বোনদের জন্য সময় দিতে যারা নিশ্চিত বিবাহের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সেক্ষেত্রে যারা ফি পরিশোধ করেন না তাদের বিষয়ে আমরা এটাই ভাবি যে, হয় তারা এখনো বিবাহের বিষয়ে সিরিয়াস নন অথবা আমাদের উপর তারা আস্থা রাখেন না। আর এ দু শ্রেণির কাজ নেয়াটা আমরা যৌক্তিক মনে করি না।

এছাড়াও এতে,
১. শ্রম দিয়েও শ্রম মূল্য না পাবার আশংকা থাকে,
আন-নূর যে সেবামূল্য গ্রহন করে তা তাদের শ্রমের বিনিময় হিসেবে। বিবাহ দেয়ার দায়িত্ব আমরা নেই না। ধরুন, আপনি রেজিষ্ট্রেশন করলেন না, আমরা আপনার জন্য বিভিন্ন খাতে খরচ করলাম, আপনার বায়োডাটা নিয়ে আমাদের ম্যাচ মেকারগণ সময়-শ্রম দিলেন, বায়োডাটাও আপনাদেরকে দেয়া হলো কিন্তু আপনারা পছন্দ করলেন না, কিছু হয়ত করলেন কিন্তু ঐপক্ষ করলো না। এভাবে কাজ আগালো কিন্তু আপনার অন্য কোন মাধ্যমে বিয়ে ঠিক হয়ে গেল। তাহলে আমরা যে শ্রম, সময়, খরচ করলাম তার বিনিময় কি আমরা পাবো? আমাদের ঐ শ্রমের কি মূল্য আপনারা দেবেন? আমাদের আন্তরিকতার কি মূল্যায়ন আপনাদের কাছে থাকবে?

২. আগে দায় পরে অন্যান্যদের কাজ,
যাদের থেকে আমরা রেজিষ্ট্রেশন ফি নিয়েছি তাদের এই দায় আমাদের শোধ করতেই হবে। তার জন্য আমরা কাজ করতে বাধ্য। এই টাকা আমাদের শ্রম দিয়ে হালাল করে নিতে হবে। তাই আমাদের নিবন্ধিত ভাই/ বোনদের সময় দিয়ে তারপর অন্যান্য অনিবন্ধিত ভাই/বোনদের কথা ভাবতে হবে।

৩. খরচ পেলেই খরচ করা সম্ভব,
আমরা যাদের জন্য পাত্র/পাত্রী খুজে দেয়ার চেষ্টা করার বিষয়ে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ তাদের জন্য মার্কেটিং, প্রমোশন, পেপার এ্যাড ইত্যাদি করে পাত্র/পাত্রী খুজতে হয়; এছাড়া আমাদের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের বেতন ও প্রাতিষ্ঠানিক অন্যান্য ব্যয়ও নির্বাহ করতে হয়, যাতে অনেক খরচ হয়। অনেক সময়ই আমরা ফি এর চেয়েও বেশি খরচ করতে হতে পারে। যা বিবাহ পরবর্তী সম্মানী পেলে হয়ত সমন্বয় হয়ে যায়।

৪. ফি না নিলে গ্রাহকদেরই আন্তরিকতা থাকেনা,
আমাদের অভিজ্ঞতা বলে, যারা ফি দেন তারা আসলেই বিবাহের বিষয়ে সিরিয়াস। তারা বিস্তারিত কথা বলে কাজ বুঝিয়ে দিয়ে যান। আমরাও কাজে আন্তরিকতা ও প্রাণ পাই। আর যারা ফি দেন না তারা মনে করেন তাদের কোন অধিকার নেই; আমরাও আগ্রহ দেখিনা। কিছুদিন এভাবে অনেকের অনুরোধ রেখে দেখেছি, কোন প্রোপোসাল পাঠালে তাদের-ই কোন গুরুত্ব নেই। অনেকের দায়িত্ব নেবার কারণে আমাদের সময় অত্যন্ত মূল্যবান; যারা বিবাহে ভালই খরচ করতে পারে/ পারবে তারা বিবাহের মূল বিষয় উত্তম সঙ্গী/সঙ্গীনি নির্বাচনের ক্ষেত্রে রেজিষ্ট্রেশান ফি-টাকে বড় ভাববে এটা আমরা মনে করি না।

এছাড়া আরো অনেক কারণে আমরা রেজিষ্ট্রেশন ফি নেয়াটাকে গুরুত্ব দিয়ে থাকি। আল্লাহ সুধারণা রেখে বোঝার তাওফিক দিন।